কোনো কিছুই অসম্ভব নয়, বিশ্বাস তাওহীদ হৃদয়ের


স্বপ্নটা অনেক বড় দেখেন, কদিন আগেই বিসিবির পাঠানো এক ভিডিও বার্তায় এমন কথা বলেছিলেন সৌম্য সরকার। আর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন অসম্ভব কিছু নয় বলেই ইঙ্গিত দিলেন আরেক টাইগার ব্যাটার তাওহিদ হৃদয়। পরিশ্রম করলে কোনো কিছুই অসম্ভব নয় বলে বিশ্বাস করেন এই তরুণ।

কোনো কিছু অর্জনের জন্য কেউ সত্যিই কঠোর পরিশ্রম করলে তাহলে সবকিছুই পাওয়া সম্ভব বলে বিশ্বাস করেন তাওহিদের। বিসিবির এক ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘কেউ যদি কিছু চায় এবং তা অর্জনের জন্য কঠোর পরিশ্রম করে তবে সবকিছুই সম্ভব। এই পৃথিবীতে অসম্ভব বলে কিছু নেই।’

বিসিবি যখন তাওহিদের ভিডিও বার্তা পাঠায় তার আগেই স্বস্তির এক জয় নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কোনোমতে জয়ের পর যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে স্বাগতিকদের কাছে সিরিজ হারে কোণঠাসা ছিল টাইগাররা। প্রস্তুতি ম্যাচেও ভারতের কাছে অসহায় আত্মসমর্পণ করেছিল দলটি। আর স্বস্তির সেই জয়ের অন্যতম নায়ক ছিলেন তাওহিদ।

ডালাসে বাংলাদেশ সময় শনিবার সকালে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ২ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ। লক্ষ্য তাড়ায় এদিন যখন তাওহিদ উইকেটে নামেন তখন ৩ উইকেট হারিয়ে বড় চাপে ছিল বাংলাদেশ। তখন লিটন দাসকে সঙ্গে নিয়ে সেই চাপ সামলে নেন তাওহিদ। ৬৩ রানের জুটিতে তাওহিদের অবদান ৪০ রান।

আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে চারটি ছক্কা ও একটি চার হাঁকানো এই ব্যাটার বলেছেন, ‘আমি পরিস্থিতির চাহিদা অনুযায়ী খেলার চেষ্টা করি। দলের যদি দুই বা তিনটি ছক্কার প্রয়োজন হয়, আমি দুটি বা তিনটি ছক্কা মারতাম। যদি দলের প্রয়োজন হয় এক ওভারে ছয়টি ডট, আমি ছয়টি ডট খেলব।’

এক সময় ছক্কা মারতে না পারলেও ধীরে ধীরে তিনি এই বৈশিষ্ট্যটি শিখেছেন তাওহিদ। লঙ্কানদের বিপক্ষে অনেকবারই রঙ বদলানো ম্যাচের এক পর্যায়ে লঙ্কান অধিনায়ক হাসারাঙ্গার এক ওভারে টানা তিনটি ছক্কা মারেন তাওহিদ। তার সেই তিন ছক্কাতেই মোমেন্টাম পেয়ে যায় টাইগাররা। এরপর দ্রুত কিছু উইকেট হারালেও কাঙ্ক্ষিত জয় পায় বাংলাদেশই।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *