কানাডাকে হারিয়ে সুপার এইটের আশা বাঁচিয়ে রাখল পাকিস্তান


ডু অর ডাই ম্যাচে কানাডার বিপক্ষে বড় জয় তুলে নিয়েছে পাকিস্তান। কানাডার দেয়া মামুলি লক্ষ্য টপকানোর ম্যাচে হাফসেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। অধিনায়ক বাবর আজম দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৩ রান করেন। এ জয়ে বিশ্বকাপে টিকে থাকার ‘অক্সিজেন’ পেল ম্যান ইন গ্রিনরা। মঙ্গলবার (১১ জুন) নিউইয়র্কের নাসাউ স্টেডিয়ামে ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হয়।

আগে ব্যাট করে পাকিস্তানের বোলারদের সামনে একাই লড়াই করেন কানাডার অ্যারন জনসন। তার ৪৪ বলে ৪ ছক্কা ও সমান চারের সাহায্যে করা ৫২ রানের কল্যাণে ৭ উইকেট হারিয়ে ১০৬ রান করতে সক্ষম হয় কানাডা। জবাবে পাকিস্তান মোহাম্মদ রিজওয়ানের ৫৩ বলে ১ ছক্কা ও ২ চারে অপরাজিত ৫৩ রান ও বাবর আজমের ৩৩ বলে ১ ছক্কা ও সমান চারে ৩৩ রানের কল্যাণে ১৫ ও ৭ উইকেট হাতে রেখে জয়লাভ করে।

কানাডার দেয়া টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২০ রানে সাইম আইয়ুবকে হারায় পাকিস্তান। এদিন পাকিস্তান তাদের ওপেনিংয়ে পরিবর্তন আনে। রিজওয়ানের সঙ্গে সাইম আইয়ুবকে পাঠায় তারা। কিন্তু নিজের নামের প্রতি সুবিচার করতে ব্যর্থ হন সাইম। দ্বিতীয় উইকেটে বাবর ও রিজওয়ান ৬৩ রানের জুটি গড়েন। দলের ৮৩ রানের সময় উইকেটের পেছনে মুভার দুর্দান্ত ক্যাচে পরিণত হন বাবর। তার আগে ৩৩ বলে ১ ছক্কা ও সমান চারে ৩৩ রান করেন তিনি।

তৃতীয় উইকেটে ফখরকে সঙ্গে নিয়ে ৩১ রানের জুটি গড়েন রিজওয়ান। কিন্তু জয় থেকে ৩ রান দূরে থাকতে জেরমি গর্ডনের শিকারে পরিণত হন ফখর জামান। চতুর্থ উইকেট আর কোনো উইকেট না হারাতে দিয়ে দলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন রিজওয়ান ও উসমান খান। রিজওয়ান  ৫৩ বলে ১ ছক্কা ও ২ চারে অপরাজিত ৫৩ রান এবং উসমান খান ২ রানে অপরাজিত থাকেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাটিং করতে নেমে দলীয় ২০ রানে প্রথম উইকেট হারায় কানাডা। ওপেনার নভনীত ধালিওয়ালকে (৪) বোল্ড করেন মোহাম্মদ আমির। স্কোরবোর্ড আর ৯ রান জমা পড়তেই পরাগ সিংকে (২) ফেরান আরেক পেসার শাহিন আফ্রিদি। পাওয়ার প্লেতে ২ উইকেট হারানো কানাডা ৭৩ রান করতেই হারায় ৬ উইকেট। দলীয় ৪৩ রানে তৃতীয় উইকেট হিসেবে রানআউট হন নিকোলাস কির্টন (১)। এরপর পেসার হারিস রউফ ইনিংসের ১০ ওভারের তৃতীয় বলে সাজঘরে ফেরান উইকেটরক্ষক শ্রেয়াস মভওয়াকে (২)। এক বল পর ডাক উপহার দেন রবিন্দ্রারপাল সিংকে।

 

কানাডার ব্যাটাররা একের পর এক একক ডিজিটে ফিরলেও দারুণ ব্যাটিংয়ে এক প্রান্ত আগলে রাখেন অ্যারন জনসন। নাসিম শাহর বলে ষষ্ঠ উইকেট হিসেবে বোল্ড হওয়া এই ডানহাতি ওপেনার করেন ৪৪ বলে ৫৪ রান। তার ইনিংসে ছিল চার ৪ ও চার ৬। নিজের দ্বিতীয় উইকেট হিসেবে আমির তুলে নেন সাদ বিন জাফরকে। বিপর্যয়ের মুখে কানাডার অধিনয়াক ২১ বলে করেন ১০ রান।

শেষ পর্যন্ত কানাডা ৭ উইকেটে করেছে ১০৬ রান। অপরাজিত ছিলেন কলিম সানা (১৩) এবং ডিলন হেইলিগার (৯)। দুটি করে উইকেট নিয়েছেন আমির ও রউফ।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *