বাংলাদেশের বিপক্ষে বিতর্কিত সিদ্ধান্তের ইস্যুতে আম্পায়রকে ধুয়ে দিলেন জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার


বাংলাদেশের ইনিংসের ১৬.২ ওভার। অটনেইল বার্টম্যানের বল লাগে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের পায়ে। জোরালো আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার। রিভিউ নিলে দেখা যায় বল বেরিয়ে যাচ্ছে লেগ স্ট্যাম্পেরও বাইরে দিয়ে। বেঁচে যান মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু আম্পায়ারের ভুল সিদ্ধান্তে বড় ক্ষতি হয়ে যায় বাংলাদেশের।

আম্পায়ারের এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে জনপ্রিয় ক্রিকেট বিশ্লেষক ও ধারাভাষ্যকার সাইমন ডুল বলেছেন, ‘ধরা যাক, বিষয়টা ফাইনালে হলো। কিংবা বলা যাক, (বাংলাদেশের বদলে) ভারত ছিল বিপরীতে দিকে। সেটাও হোক একটা ফাইনালে। তাহলে পুরো ম্যাচজুড়ে এমন কিছু (আম্পায়ারদের সিদ্ধান্ত) করে যাওয়া খুব কঠিন হতো।’

সোমবার (১০ জুন) বাংলাদেশ এবং দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচের পর ক্রিকবাজের আলোচনায় ঠিক এভাবেই নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন সাইমন ডুল। নিউজিল্যান্ডের সাবেক এই পেস বোলারের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের আউটের প্রসঙ্গে। সেখানেই যেন নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করলেন তিনি।

জনপ্রিয় এই ক্রিকেট বিশ্লেষক এবং ধারাভাষ্যকার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে আউট দেয়া সিদ্ধান্তে  চটেছেন আম্পায়ারের ওপর। তিনি বলেন, ‘আমি বলতে চাইছি, যেভাবে এই পদ্ধতি কাজ করছে, সেখানে কিছু একটা পরিবর্তন অবশ্যই আনতে হবে। কারণ এটা বিশ্রি একটা ভুল। একেবারেই বাজে সিদ্ধান্ত। কোনোভাবেই বলটা (মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের আউট সম্পর্কে) স্ট্যাম্পে আঘাত করতো না।’

নিউজিল্যান্ডের সাবেক পেস বোলার, ক্রিকেট বিশ্লেষক ও ধারাভাষ্যকার সাইমন ডুল

দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে বাংলাদেশে হেরেছে চার রান ব্যবধানে। মাহমুদউল্লাহকে সে সময় আউট না দিলে বাংলাদেশ দল অতিরক্ত চার রান পেত। বাংলাদেশের চার রান প্রাপ্য বলেও মনে করেন ডুল, ‘একেবারে বন্দুকধারীর মত দ্রুতগতিতে আম্পায়ার হাত তুলেছে। এটা বাজে সিদ্ধান্ত ছিল। আর আমাদের বলতেই হবে পুরো টুর্নামেন্টেই আমরা খুব ভালো কিছু আম্পায়ারিং দেখেছি। কিন্তু এইক্ষেত্রে সেটা ছিল না। তারচেয়ে বড় কথা, লেগবাইয়ে চার রান হওয়া দরকার ছিল।’

আম্পায়ার্স কল এবং এমন বিতর্কিত সিদ্ধান্তে আইসিসিকে পরিবর্তন আনতে হবে বলে মনে করেন সাবেক এই কিউই পেসার। ক্রিকবাজের আলোচনায় তার মন্তব্য, ‘ধরা যাক, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শেষ বলে এটা ঘটলো। আর একটা দল এমন বাজে সিদ্ধান্তের কারণে হেরে গেল। যেভাবে এইসব চলছে, তাতে কিছু পরিবর্তন আনতেই হবে। কারণ এখন প্রায়ই এসব হচ্ছে। প্রতিবারই এমন কিছু প্রশ্ন আমি করেছি আইসিসি টুর্নামেন্টের আগে বা পরে। তখন তারা বলে, আমাদের এখানে কিছু করার নেই। এটা খেলার ফলাফলে বড় কোনো প্রভাব ফেলবে না।’

‘মাহমুদউল্লাহকে ভুলভাবে আউট দেয়া হয়েছিল, আমি জানিনা কীভাবে এই পরিবর্তন আসবে, কবে এই পরিবর্তন হবে। তবে কিছু একটা পরিবর্তন অবশ্যই আসতে হবে। এগুলো ম্যাচের ফল বদলে দিচ্ছে। আর আমরা এমনটা হতে দিতে পারি না।’-যোগ করেন সাইমন ডুল।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *