বিশ্বকাপ সুপার এইটের পথে বাংলাদেশই এগিয়ে। তবে আশা হারাচ্ছে না নেদারল্যান্ডসও। বাংলাদেশের যেখানে শুধু জয় প্রয়োজন, সেখানে ডাচদের সামনে কঠিন সমীকরণ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় তো বটেই তাকিয়ে থাকতে হবে ভাগ্যের দিকেও। তবে নেপালের বিপক্ষে টাইগারদের জয় অথবা ম্যাচ পরিত্যক্ত হলে আর কিছু করার থাকবে না নেদারল্যান্ডসের।

সেন্ট ভিনসেন্টে নেপালের ক্ষত-বিক্ষত হৃদয়; দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে গড়া হলো না ইতিহাস। ডি গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন প্রোটিয়াস; চার ম্যাচের সবকটিতে জয়। হারতে হারতেও হারেনি দক্ষিণ আফ্রিকা। বাকি চার দল খেলেছে তিনটি করে ম্যাচ। টেবিলে বাংলাদেশের পয়েন্ট চার। নেদারল্যান্ডসের দুই। বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়া নেপাল ও শ্রীলঙ্কার পয়েন্ট এক।

দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গী হয়ে সুপার এইটে যাবে কোন দল? উত্তর বাংলাদেশ অথবা নেদারল্যান্ডস। অর্থাৎ লাল-সবুজের মত ডাচদেরও সুযোগ রয়েছে সেরা আটে যাওয়ার। সোমবার নেপালের মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। অপরদিকে নেদারল্যান্ডসের প্রতিপক্ষ শ্রীলঙ্কা। সেন্ট ভিনসেন্টে টাইগারদের জয় অথবা ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে গেলে সেন্ট লুসিয়ায় আর কিছুই করার থাকবে না ডাচদের। কেননা পয়েন্টের হিসাবে ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে যাবে নাজমুল শান্তরা।

কঠিন সমীকরণের সামনে স্কট এডওয়ার্ডসের দল। হিসাবনিকাশ জটিল করে দিয়েছে রান রেট। বাংলাদেশের রান রেট দশমিক চার সাত আট। নেদারল্যান্ডসের অবস্থা নাজুক, মাইনাসের ঘরে দশমিক চার শূন্য আট।

যদি বাংলাদেশ হেরে যায় আর ডাচরা জিতে তখন দু’দলেরই হবে চার পয়েন্ট। কঠিনতর হলেও রান রেটে নাজমুল শান্তর দলকে টপকে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

সমীকরণ-১: শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আগে ব্যাট করে নেদারল্যান্ডসকে করতে হবে ১৪০ রান। লঙ্কানদের হারাতে হবে ৫৩ রানে।

সমীকরণ-২: যদি নেপালের কাছে ৩৮ রানে হেরে যায় বাংলাদেশ সেক্ষেত্রে লঙ্কানদের ১৫ রানে হারালে নিশ্চিত হবে নেদারল্যান্ডসের সুপার এইট।

শেষ আটের দৌড়ে টাইগাররাই এগিয়ে, তবে অনিশ্চয়তার ক্রিকেট ডাচদেরও স্বপ্ন দেখাচ্ছে। সমীকরণ দুইটির কোনোটিই যদি ডাচরা পূরণ করতে না পারে সেক্ষেত্রে নেপালের কাছে হারলেও রান রেটের সুবিধা নিয়ে সুপার এইটে চলে যাবে টাইগাররা।

By admin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *